মতলব উত্তর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আফরোজা হাবিব শাপলা’র সরকারি গাড়ী।

মতলব উত্তর এসিল্যান্ডের সরকারি গাড়ী ব্যবহার করছে স্বামী

সরকারি গাড়ির অপব্যবহার করা ও ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার না করতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে মন্ত্রণালয়ের। অথচ চাদপুরের মতলব উত্তর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আফরোজা হাবিব শাপলা’র সরকারি গাড়ী ব্যবহার করছেন তাঁর স্বামী। এতে একদিকে যেমন জ্বালানি তেল বেশি যাচ্ছে সরকারি কোষাগার থেকে।
অনুসন্ধান বলছে, মতলব উত্তর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আফরোজা হাবিবা শাপলা’র নামে বরাদ্ধকৃত সরকারী গাড়ী করে প্রতিদিন সকালে চাঁদপুর সদরে যান তাঁর স্বামী। বিকেলে আবার ওই গাড়ী করে মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ কোয়াটারে ফিরেন।
সরকারের পক্ষ তাকে সরকারি কাজে ব্যবহারের জন্য সাদা রংয়ের উন্নতমানের একটি গাড়ি দেয়া হয়। নিয়ম রয়েছে সরকারি কাজ ছাড়া উপজেলার বাইরে গাড়ি নিয়ে যেতে হলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ও সংশ্লিষ্ট কারণ থাকতে হবে। উপজেলা থেকে শহরের দূরত্ব প্রায় ৩৫ কিলোমিটার। প্রতিদিন ১৪০ কিলোমিটার যাতায়াত করা হয়।
এসব কারণে সরকারি গাড়ি ব্যবহার করায় জ্বালানী তেল লাগছে বেশি। অন্যদিকে ব্যক্তিগত কাজে গাড়ি ব্যবহার করায় বদনাম ছড়াচ্ছে।
মতলব উত্তর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আফরোজা হাবিব শাপলা’র স্বামী চাঁদপুর জেলা আনসার ভিডিপি সহকারি কমান্ডার শাহ নেওয়াজ।
নাম না প্রকাশে বেশ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, প্রতিদিন সরকারি গাড়ী ব্যবহার করে এসিল্যান্ড এর স্বামী চাঁদপুরে যাতায়াত করে থাকে। এক্ষেত্রে ব্যবহার করেন সরকারি গাড়ি। এ ব্যাপারে সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থা নেয়া উচিৎ।
গাড়ির চালক বলেন, স্যার আমাকে যেখানে যেতে বলে আমি যাই।
সহকারি কমিশনার (ভূমি) আফরোজা হাবিব শাপলা বলেন, চাঁদপুরে গাড়ি মেরামত, মতলবে তেল আনতে ওইদিকে গেলে তাকে (শাহ নেওয়াজ) কে নামিয়ে দেয়া হয়। এছাড়া আমি অফিসের কাজে চাঁদপুর গেলে তাকে সাথে করে নিয়ে যাই।
সরকারি যেকোন যানবাহন ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহারে সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা রয়েছে জানিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্নেহাশীষ দাশ বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। যদি ব্যক্তিগত কাজে সরকারি গাড়ির ব্যবহার করেন তা ঠিক হবে না।
তবে, চাইলেই তার ব্যক্তিগত কাজে সরকারি গাড়ি ব্যবহার করতে পারবেন না।