মতলব উত্তর উপজেলার ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর শতবর্ষপূর্তি, জাতির জনকের ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে তাবারুক বিতরণ করেন- চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট মো. নুরুল আমিন রুহুল।

ফতেপুর পশ্চিম আ.লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভা

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ সকল প্রেরণার উৎস
—এডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল

মনিরুল ইসলাম মনির :
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট মো. নুরুল আমিন রুহুল।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আন্দোলন সংগ্রামের রোল মডেল। তাঁর আদর্শ সকল প্রেরণার উৎস এবং তার জীবনী অনুসরণ করলে সব সমস্যার সমাধান পাওয়া সম্ভব বলে মনে করেন আলহাজ্ব এডভোকেট মো. নুরুল আমিন রুহুল।
মতলব উত্তর উপজেলার ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর শতবর্ষপূর্তি, জাতির জনকের ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শনিবার মতলব উত্তর উপজেলার নাউরী আহম্মদিয়া উচ্চ বিদ্যলয় মাঠে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্প অর্পন, আলোচনা সভা, মিলাদ দোয়া ও তাবারক বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।
নুরুল আমিন রুহুল বলেছেন, জাতির জনক কোনও দল বা গোষ্ঠীর হতে পারে না। জাতির জনক সকল দলের, সকল মানুষের। আজকে যারা রাজনীতি করছে, সকলের উচিত জাতির জনককে মেনে নিয়ে রাজনীতি করা। তার অবদানকে স্বীকার করেই রাজনীতি করতে হবে।

মতলব উত্তর উপজেলার ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর শতবর্ষপূর্তি, জাতির জনকের ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট মো. নুরুল আমিন রুহুল।

তিনি বলেন, ১৫ আগস্ট ইতিহাসের নিষ্ঠুরতম রাজনৈতিক হত্যাকান্ড। জগতে আর কোনো হত্যাকান্ডে নিষ্পাপ শিশুকে হত্যা করা হয়নি, অবলা নারীকে হত্যা করা হয়নি, টার্গেট করা হয়নি অন্তঃসত্ত্বা নারীকে। সে সময় বিদেশে ছিলেন বলেই প্রাণে বেঁচে যান আমাদের আশার বাতিঘর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বঙ্গবন্ধুর আরেক কন্যা শেখ রেহানা। সেদিন তারা বেঁচে গিয়েছিলেন বলেই আজকে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হয়েছে। হয়েছে যুদ্ধাপরাধের বিচার। কলঙ্কমুক্ত হয়েছে দেশ।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন সরকারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সরকার আলাউদ্দিনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট রুহুল আমিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কুদ্দুস, মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দিন মৃধা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান প্রধান, অর্থ সম্পাদক মিজানুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি দেওয়ান জহির, নাউরী আহমেদীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক একেএম তাজুল ইসলাম।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ, মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ইঞ্জিনিয়ার খোকন, চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট সেলিম মিয়া, মতলব ডিগ্রি কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন প্রধান, মতলব উত্তর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মিরাজ খালিদ, ছাত্রলীগ নেতা গাজী নিয়াজ মোর্শেদ ছোটন, আবু হানিফ অভি, আবির হায়াত সিহাব প্রমুখ।