প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

৩৫ লাখ পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন প্রধানমন্ত্রী

করোনা ভাইরাসের মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত নিম্নআয়ের ৩৫ লাখ পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুই হাজার ৫০০ টাকা করে প্রতি পরিবারকে দেওয়া এই সহায়তা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে দেওয়া হবে।

রবিবার (২ মে) সকালে গণভবন থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

এসময় শেখ হাসিনা বলেন, যারা দৈনিক আয়ের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করে তাদের জন্য আড়াই হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা আমরা দিচ্ছি। আমার পক্ষ থেকে যতটুকু সম্ভব ছিল ততটুকু করেছি।

তিনি বলেন, দুস্থ্য মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা আমরা চালিয়ে যাচ্ছি। আমরা অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। কৃষকদের ভাগ্য গড়াই ছিল জাতির পিতার স্বপ্ন।বিত্তশালীরা আপনাদের আশেপাশের লোকদের সাহায্য করুন। জনগণের পাশে দাঁড়ান। পৃথীবির কোনো দেশ আছে কি-না যারা এত দ্রুত মানুষের পাশে পৌঁছাতে পারে।

শেখ হাসিনা বলেন, সব সময় দুর্গত মানুষের পাশে আওয়ামী লীগ আছে। কৃষকের ধান কাটাসহ সব আমরা করছি। আমাদের প্রত্যেকেই মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। আমরা বিরোধী দল থাকতেও সবার আগে আমরাই মানুষের পাশে ছুটে গেছি।

এদিকে, ২৯ এপ্রিল অর্থ মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, চলমান করোনা মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৫ লাখ নিম্নআয়ের পরিবারকে ২৫০০ টাকা করে মোট ৮৮০ কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে। এ ৩৫ লাখ পরিবারকে ইএফটি এর মাধ্যমে তাদের নির্দিষ্ট মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্টে বা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে অর্থ সহায়তা সরাসরি প্রেরণ করা হবে।

এর আগে, এর আগে গত বছর করোনা মহামারির কারণে যে সকল নিম্নআয়ের লোকজন আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত এবং কর্মহীন হয়ে পড়েছিল তাদেরকে সহায়তার জন্য ‘নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান’ কর্মসূচি চালু করা হয়েছিল। সে সময় ক্ষতিগ্রস্ত ৩৫ লাখ নিম্নআয়ের পরিবারকে পরিবার প্রতি ২৫০০ টাকা করে মোট ৮৮০ কোটি টাকা আর্থিক সহায়তা সরাসরি উপকারভোগীর মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্টে বা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে প্রদান করা হয়।