উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আ.তা.ম বোরহান উদ্দিন

মতলবে পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনুষ্ঠানের নামে চাঁদা উত্তোলনের অভিযোগ

করোনা মহামারিতে স্বাস্থ্য বিধি উপেক্ষিত

মতলব উত্তর :

বিদায় অনুষ্ঠানের নামে চাঁদপুরের মতলব উত্তর ও দক্ষিণ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে চাঁদা উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে দুইদিন ধরে এলাকায় গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আ.তা.ম বোরহান উদ্দিন দুই উপজেলার দায়িত্ব পালন করছেন।
জানা গেছে, গত ২৭ মার্চ (শনিবার) মতলব উত্তর ও দক্ষিণ উপজেলার সকল কর্মকর্তা, কর্মচারী ও মাঠকর্মীদের নিয়ে একটি বিদায় অনুষ্ঠান ও পিকনিকের আয়োজন করে। ওই অনুষ্ঠান কেন্দ্র করে সকলের কাছ থেকে ১ হাজার ৫শ’ টাকা করে চাঁদা আদায় করেন। এতে অনেকেই চাঁদা না দেওয়ার মতো থাকলেও ডিপার্টমেন্টল বিষয় হওয়ার কারণে চাঁদা দিতে বাধ্য করা হয়েছে। দুই উপজেলা ১৫০ জনেরও বেশি জনবল রয়েছে। এ হিসেবে ২ লাখ ২৫ হাজার টাকা উত্তোলন করা হয়েছে।
কলাকান্দা ইউনিয়নের পরিদর্শিকা সানজিদা আক্তার’সহ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরো কয়েকজন জানান, যারা ৫ বছর, ৩ বছর বা ২ বছর আগে চাকুরী থেকে অবসর গ্রহণ করেছেন তাদেরকে বিদায় সংবর্ধনা ও পিকনিকের জন্য আমাদের কাছ থেকে দেড় হাজার টাকা করে চাঁদা নিয়েছেন। অফিসিয়াল নির্দেশনার কারণে টাকা দিতে হয়েছে।
এভাবে চাঁদা উঠিয়ে অনুষ্ঠান করা অনৈতিক বলেও মন্তব্য করেছেন অনেকে। তবে ওই অনুষ্ঠান ঘিরে যে টাকা উঠানো হয়েছে সে হিসেবে অর্ধেকেরও কম টাকা খরচ হয়েছে বলেও অনেকের ধারণা। ওই অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধিও মানা হয়নি বলেও জানা গেছে। করোনা মহামারীর সময়ে এধরনের অনুষ্ঠান করায় বিরূপ মন্তব্য করেছেন অনেকেই।
তবে এ ব্যাপারে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা আ.তা.ম বোরহান উদ্দিন বলেন, চাঁদা তুলে অনুষ্ঠান করায় তাতে আপনাদের কি সমস্যা হয়েছে। যদি পত্রিকায় দিতে মন চায় তাহলে দিয়ে দেন।
মতলব উত্তর উপজেলা সহকারি পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. নূরনবী বলেন, অনুষ্ঠান আয়োজনের ব্যাপারে আমি কিছু জানি না। আমি শুধু অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার দাওয়াত পেয়েছি। আমি এর বেশি কিছু জানি না।
মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্নেহাশীষ দাশ বলেন, করোনাকালীন সময়ে এধরনের অনুষ্ঠান না করাই ভালো।