চেরি টমেটোর বাম্পার ফলন

চাঁদপুরের ফ্রুটস ভ্যালি এগ্রো প্রকল্প

আঙুরের মতো থোকায় থোকায় নান্দনিকভাবে ঝুলে থাকা অসাধারণ এক সবজি চেরি টমেটো। পুরো বাগানটি লাল আর হলুদ লম্বাটে ছোট ছোট টমেটোর এক অপরূপ দৃশ্য।

চাঁদপুর শহরের পূর্বদিকে শাহতলী এলাকায় অবস্থিত ফ্রুটস ভ্যালি এগ্রো প্রকল্পে বিশ্বখ্যাত ম্যাগলিয়া রোসা নামের চেরি টমেটোর বাম্পার ফলন হয়েছে।

শীতপ্রধান দেশের এই উচ্চ মূল্যের সবজির এমন ফলনে স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তারাও অবাক। তারা বলছেন, উচ্চ ফলনশীল এই জাত দেশে ছড়িয়ে পড়লে কৃষকরা লাভবান হবেন।

পরিত্যক্ত ইটভাটার জমিতে ফ্রুটস ভ্যালি এগ্রো প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বিশ্বখ্যাত বিভিন্ন ফল ও সবজি চাষ করে চমক সৃষ্টি করে চলেছে। প্রকল্পে ব্যবহৃত হচ্ছে, কৃষির সর্বাধুনিক সব প্রযুক্তি। যার ব্যবহার এ জেলায় নেই বলে কৃষি কর্মকর্তারা স্বীকার করেছেন।

এই প্রকল্পে প্রথমবারের মতো গোল্ডেন ইয়েলো নামের নতুন এক জাতের ক্যাপসিকামের ব্যাপক ফলন হয়েছে। যার রং গাঢ় কমলা বা সোনালি। এ ছাড়া উন্নত জাতের স্ট্রবেরিরও সফল চাষ হয়েছে।

এর আগে বিদেশি রকমেলন, ক্যান্টালোপ, হানিডিউ, আইসবক্স ইয়েলোসহ বিভিন্ন ফল চাষ করে ফ্রুটস ভ্যালী সফল উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যাপক আলোচিত হয়েছে।

ফ্রুটস ভ্যালির চেরি টমেটোর জমি এর আগে গত ৬০ বছরের বেশি সময় ইটভাটা চালু ছিল। সেই পরিত্যক্ত জমি এখন লাল ও হলুদ জাতের চেরি টমেটোতে ভরপুর।

প্রতিটি গাছেই ঝুলছে আঙুরের মতো লাল, হলুদ আর সবুজ চেরি টমেটো। পুরো বাগানেই গাছভরা পাকা টমেটো। এভাবে গাছেই আরও কমপক্ষে সাতদিন থাকলেও এই টমেটো নষ্ট হবে না বলে জানান উদ্যোক্তা।

এদেশে আনকমন ভ্যারাইটির দুর্দান্ত স্বাদযুক্ত ইতালিয়ান চেরি টমেটো ‘ম্যাগলিয়া রোসা’ চাষ করে আশাতীত ফলন হয়েছে। রোদ ও তাপ নিয়ন্ত্রণে বিশেষ শেড তৈরি করে বিদেশি টমেটোর চাষ করা হয়েছে। মাটিতে ব্যবহার করা হয়েছে মালচিং পেপার।

এ জন্যে প্রতিটি গাছেই ৭-৮ কেজি করে টমেটো রয়েছে বলে ফ্রুটস ভ্যালি এগ্রো প্রকল্পের সফল উদ্যোক্তা, সিনিয়র সাংবাদিক হেলাল উদ্দিন জানান। তার মতে, রূপে-গুণে আর স্বাদেও এই টমেটো অতুলনীয়।

সারা বিশ্বেই ঔষধিগুণ এবং পুষ্টিগুণের জন্য এ জাতটি জনপ্রিয়। ফ্রুটস ভ্যালির উদ্যোক্তা হেলাল উদ্দিন বলেন, চেরি টমেটোর এদেশের আবহাওয়ায় এত ভালো ফলন আশা করিনি। প্রতিটি গাছে স্বাভাবিকের চেয়েও বেশি ফলন হয়েছে।

তিনি জানান, ইতালিয়ান ‘ম্যাগলিয়া রোসা’ চেরি টমেটোর সবচেয়ে উন্নত জাত, যা উচ্চ ফলনশীল।

তিনি বলেন, অচিরেই সারা দেশে ছড়িয়ে যাবে চেরির নতুন জাত ‘ম্যাগলিয়া রোসা’, যা কৃষকদের ভাগ্য বদলে দিতে পারে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মনিরুজ্জামান স্বপন প্রকল্পটিতে প্রয়োজনীয় সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি জানান, ফ্রুটস ভ্যালিতে উচ্চ ফলনশীল ম্যাগলিয়া রোসার পরীক্ষামূলক চাষ হয়েছে সম্পূর্ণ অর্গানিক পদ্ধতিতে। ফ্রুটস ভ্যালি প্রমাণ করেছে এ দেশের মাটিতে সত্যিই সোনা ফলে।

চেরি টমেটো মূলত ছোট জাতের টমেটো। ম্যাগলিয়া রোসা দেখতে বড় আঙুরের মতো হলেও পুষ্টিমান আঙুরের থেকেও অনেক বেশি। এই টমেটো খেতে অত্যন্ত সুস্বাদু ও নানা পুষ্টিগুণে ভরপুর। এই জাতটি বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়লে অনেক লাভজনক উচ্চ মূল্যের সবজি হিসাবে পরিচিতি পাবে এবং কৃষকরা লাভবান হবেন বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।