ভারতে ২টি ভ্যাকসিন চূড়ান্ত, এখন শুরু করার পালা

জরুরী ব্যবহারের জন্য করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিল ভারত। রবিবার (৩ জানুয়ারি) দেশটির ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল রোববার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তারা দু’টি ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রেজেনেকার তৈরি ভ্যাকসিন কোভিশিল্ড এবং অপরটি ভারতের স্থানীয় কোম্পানি বায়োটেকের তৈরি। খবর সিএনএন।

এর আগে, এ দুটি ভ্যাকসিন জরুরি ভিত্তিতে অনুমোদন দেয় দেশটির বিশেষজ্ঞ প্যানেল। সেই ছাড়পত্র বিবেচনায় ভ্যাকসিন দুটি ব্যবহারের চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হলো। এখন থেকে ব্যাপক হারে ব্যবহার করা যাবে এ ভ্যাকসিন।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি কোভিশিল্ড এবং ভারত বায়োটেকের তৈরি ‘কোভ্যাকসিন’ এবং ফাইজারের তৈরি করোনার টিকা ভারতে জরুরি ব্যবহারে ছাড়পত্র চেয়ে আবেদন করেছিল। নতুন বছরের প্রথম দিন অর্থাৎ শুক্রবার অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা খতিয়ে দেখতে বৈঠকে বসে বিশেষজ্ঞ কমিটি। বিস্তারিত আলোচনা এবং যাবতীয় নথি খতিয়ে দেখার পর অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি ভ্যাকসিন ব্যবহারে জরুরি ভিত্তিতে ছাড়পত্র দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ওই কমিটি।

একইভাবে শনিবার ফের বৈঠকে বসে ভ্যাকসিন-সংক্রান্ত বিশেষজ্ঞ কমিটির সদস্যরা। দীর্ঘক্ষণ আলোচনার পর ভারত বায়োটেকের কোভ্যাকসিনকেও ছাড়পত্র দেওয়ার সুপারিশ করে। কমিটির সদস্যরা জানান, জরুরি ভিত্তিতে কোভিডের সম্ভাব্য টিকা হিসেবে কোভ্যাকসিন ব্যবহার করা যেতে পারে। ভারতের ওষুধ নিয়ন্ত্রকারী সংস্থা ডিসিজিআই এর শীর্ষ কর্মকর্তা মি. সোমানি জানান, ভ্যাকসিন শতভাগ নিরাপদ এবং কার্যকর। কোভিশিল্ড করোনা রুখতে ৭০.৪২ শতাংশ কার্যকর।

করোনা মোকাবিলায় ভ্যাকসিন চূড়ান্ত অনুমোদনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এক টুইটে জানান, দুই ভ্যাকসিন চূড়ান্ত অনুমোদনে ভারতের জন্য গর্ব। ভারতের নাগরিকদের মধ্যে জরুরি ভিত্তিতে টিকা প্রয়োগ শুরু হবে বলেও জানান তিনি।